হোয়াইট হেডস কি, এবং তার প্রতিকার।

আমরা সবাই ব্ল্যাক হেডস জনিত সমস্যা নিয়ে চিন্তিত থাকি। কিন্তু দেখা যায় আমাদের অনেকেরই হোয়াইট হেডস জনিত সমস্যা থাকে। হোয়াইট হেডস মূলত এক ধরনের ব্রন, যা তৈরি হয় ত্বক থেকে নিগৃত তেল থেকে বা মৃত কোষ দিয়ে ত্বকের রন্ধ্র ব্লগ হয়ে যায়। এছাড়া অতিরিক্ত ধূম্পান,দুষচিন্তা, অপরিষ্কার থেকেও হোয়াইট হেডস হয়ে থাকে। হোয়াইট হেডস শুধু যে মুখে হয় তা হয় মুখের পাশাপাশি,ঘারে,গলায়,পিঠে বা হাতেও হতে পারে। তবে এ নিয়ে চিন্তা করার কিছু নেই। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া খুবই সহজ। কিছু সহজ নিয়ম মেনে চললেই হোয়াইট হেডস থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। আসুন আমরা যেনে নেই কিভাবে হোয়াইট হেডশ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

  1. ত্বকে হোয়াইট হেডস থাকলে কখন ও টিপে পরিষ্কার করবেন না। এতে ত্বকে স্থায়ী ভাবে দাগ বা ইনফেকশন হতে পারে। ত্বক সবসময় পরিষ্কার রাখবেন। কখনই নোংরা হাত দিয়ে ত্বক মুছবেন না।হাতে ব্যকটেরিয়া থাকতে পারে যার থেকে হোয়াইট হেডস এর সমস্যা বৃদ্ধি পেতে পাড়ে
  2. হোয়াইট হেডস সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে মধুর কনো বিকল্প নেই। মধুতে আছে আন্টি-ব্যাকটিরিয়াল উপাদান, যার কারনে ব্যাকটিরিয়াল উপাদেন মারা যয়ার সাথে সাথে হোয়াইট হেডস এর আকার ও ইনফ্লোমেশন কমতে থাকে। তাই দুই চামচ মধুর সাথে একটা ডিমের সাদা অংশ এবং এক টেবিল চামচ দুধের সাথে মিশিয়ে পেস্ট করে নিন। হোয়াইট হেডস জনিত জায়গায় ভালোকরে লাগান, শুকিয়ে গলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
  3. হোয়াইট হেডস দূর করতে ট্মেটো বেশ উপকারি। ট্মেটোর ভিতপ্রের নরম অংশ হোয়াইট হেডস জনিত জায়গায় লাগিয়ে পাঁচ মিনিট ম্যাসাজ করুণ, তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।
  4. কাঁচা আলু ব্লেন্ড করে আপনার ত্বকে ৩০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে আপনার ত্বক অনেক উজ্জ্বল হবে
  5. ঘরোয়া পদ্ধতিতে আপনার ত্বক স্কার্ব করতে পারেন। এর জন্যে চিনি লেবুর রস, অলিভ অয়েল দিয়ে মাস্ক তৈরি করে নিন। এরপর এই মিশ্রণ দিয়ে ত্বকে মাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন।
  6. তরমুজের রস এবং লেবুর রস ত্বককে ঠান্ডা করার পাশাপাশি ত্বককে নরম ও করে থাকে। অতিরিক্ত তৈলাক্ত ত্বকে এইটা লাগান। কারন তৈলাক্ত ত্বকে হোয়াইট হেডস বেশি হয়ে ঠাকে।
  7. মেকআপ করলে রাতে ঘুমানোর আগে মেক আপ অবস্যই ধুয়ে নিবেন। তাছাড়া ত্বকে ময়লা জমে গিয়ে হোয়াইট হেডস হতে পারে। মাসে একবার পার্লারে গিয়ে প্রফেশনার পদ্ধতিতে হোয়াইট হেডস পরিষ্কার করে নিবেন।

এক্সফোলিয়েশনের পর আপনার স্কিন টাইপ অনুযায়ী ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। ত্বকের যন্ত নিন। নিজেকে সুস্থ রাখার সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের সুস্থতারও নজর দিন।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *